ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৪ জন নিহত

শুক্রবার, ৩১ জুলাই ২০২০ | ৯:২১ অপরাহ্ণ

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৪ জন নিহত

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৪ জন নিহতের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের মাতম বইছে।

স্বজনদের কান্নায় বাতাস ভারি হয়ে আসছে। ‘হায়রে হায় ঈদের ছুটিতে বাড়ি আসার বদলে কোথায় গেলা, আমাদের ছেড়ে এত তাড়াতাড়ি চলে গেলা’ ইত্যাদি বলে বিলাপ করছেন স্বজনরা।



শুক্রবার (৩১ জুলাই) দুপুর ১২টায় সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার চরনারচর ইউনিয়নের শ্যামারচর (বাগহাটি) গ্রামে হরিধন দাসের ছেলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত স্বপন কুমার দাসের বাড়িতে গিয়ে এ দৃশ্য দেখা যায়।

পরিবারের লোকদের সান্তনা দিতে প্রতিবেশী ও আশপাশের বাসিন্দারা জড়ো হন। স্তব্ধ হয়ে গেছে পুরো এলাকা। সবার মাঝেই শোক। হঠাত করে একটি দুর্ঘটয়ান যেন পুরো এলাকাকে বাকরুদ্ধ করে দিয়েছে।

 

স্বজরা জানান, মৌলভীবাজার বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকে কমলগঞ্জ উপজেলায় কর্মরত ছিলেন স্বপন কুমার দাস। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে সেখানেই থাকতেন তিনি। ঈদের ছুটিতে স্ত্রী লাভলী রানী দাস ও তিন ছেলেকে নিয়ে প্রাইভেটকারে বাড়ি আসছিলেন। এসময় একটি বাসের সঙ্গে তাদের তাদের বহনকারী কারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে ঘটনাস্থলেই নিহত হন স্বপন কুমার দাস, তাঁর স্ত্রী লাভলী রানী দাস ও জমজ দুই ছেলে শৈবাল দাস, সৌমিত্র দাস,(৮)। এসময়য় গুরুতর আহত হন সৌরভ দাস (১২)।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের চাঁদপুর নামক স্থানে সিলেটগামী একটি প্রাইভেটকার ও বিপরীতমুখী কুমিল্লাগামী একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে ৫ জন নিহত হয়েছে। একজন আহত হন। নিহতদের মধ্যে স্বপন কুমার দাস, তাঁর স্ত্রী ও দুই সন্তান মিলে মত ৪ জন ও কারের চালক মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা হাশেম।

 

সিলেট হাইওয়ে পুলিশের ওসি মায়নুল ইসলাম জানান- ‘তাজপুর এলাকার তানপুর নামক স্থানে শুক্রবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে সিলেট থেকে কুমিল্লামুখি ‘কুমিল্লা ট্রান্সপোর্ট’র একটি বাস ও শ্রীমঙ্গল থেকে সিলেট অভিমুখে যাত্রা করা একটি প্রাইভেট কারের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। বাসের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে প্রাইভেটকারের অর্ধেকটাই বাসের সামনের দিকে নিচে ঢুকে যায়। এসময় ঘটনাস্থলেই পাঁচজন মারা যান। গুরুতর আহত একজনকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

Development by: webnewsdesign.com