নওগাঁর মহাদেবপুরে স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর মৃত্যু

মঙ্গলবার, ২৩ জুন ২০২০ | ৯:১৬ অপরাহ্ণ

নওগাঁর মহাদেবপুরে স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর মৃত্যু

নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার ১০নং ভীমপুর ইউপির সোনাপুর গ্রামে স্বামীর নির্যাতনে আহত গৃহবধূ আশা বেগম (২০) চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার বিকেলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন।

গত সোমবার শরিফুল ইসলাম তার স্ত্রী আশা বেগম কে শারিরীক নির্যাতন করে গুরুতর আহত করে। তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।



নিহতের বাবা মামুন বলেন, পাঁচ বছর আগে দুই পরিবাবের সম্মতিতে ক্রমে আমার মেয়ে আশা বেগম কে মহাদেবপুর উপজেলার ১০নং ভীমপুর ইউপির সোনাপুর গ্রামে আব্দুল এর ছেলে শরিফুলের সঙ্গে বিবাহ দেওয়া হয়। বিয়ের দুই বছর পর আমার মেয়ের সংসার জুড়ে একটি ছেলে সন্তানও হয় বাচ্চাটি বয়স বর্তমান তিন চলছে। গত সোমবার আমার মেয়েকে অমানুষিক নির্যাতন করে শরিফুল। প্রতিবেশীরা খবর দিলে আমরা হাসপাতালে গিয়ে মেয়ের অবস্থা গুরুতর দেখে রাজশাহী মেডিকেলে নিয়ে যাই। কিন্তু এক সপ্তাহ মৃত্যর সাথে পাঞ্জা লড়ে মঙ্গলবার বিকেল ৫ টায় মারা যায়। আমি আমার মেয়ে হত্যার বিচার চাই। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ময়না তদন্ত শেষে লাশ আশার বাবার বাড়ির এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এবিষয়ে শরিফুলের মা বলেন, আমার ছেলে কখন কখনই এই রকমের নির্যাতন করে নাই। আমার ছেলের বউ সংসারে আসার পর থেকে লেগেই আছে। ঘটনার দিন কোন ধরণের দন্ত বা নির্যাতন শিকার হয়নি। হঠাৎত কথা কটাকাটির এক পর্যায়ে বিষ খাবো গলায় ফাঁস দিবো বলে চিৎকার চেচামেচি করে। পরে আমার ছেলে কাজ করার উদ্দেশ্য বাড়ির বাহিরে চলে গেলে গলায় দেওয়ার চেষ্টা করে। তিনি আরো জানান,ইর্তি পূর্বে ও এই ধরণের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে জানিয়ে।

মহাদেবপুর থানার ওসি নজরুল ইসলাম জুয়েল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন এবিষয়ে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং আসামী গ্রেফতারে চেষ্টা অবাহৃত আছে।

Development by: webnewsdesign.com