‘ইয়ে লো আজাদি’ বলে শিক্ষার্থীদের দিকে বন্দুকধারীর গুলি

শনিবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৫:৪০ অপরাহ্ণ

‘ইয়ে লো আজাদি’ বলে শিক্ষার্থীদের দিকে বন্দুকধারীর গুলি

ভারতের দিল্লিতে জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে সংশোধিত নাগরিক তালিকা (সিএএ) বিরোধী বিক্ষোভে অজ্ঞাত পরিচয় এক ব্যক্তির চালানো গুলিতে এক শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। দেশটির রাজধানীতে এক মাসেরও বেশি সময় ধরে চলমান এই বিক্ষোভে এ ধরনের ঘটনা এই প্রথম ঘটলো বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের বাইরে বিক্ষোভ চলাকালে এই ঘটনা ঘটে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অস্ত্রধারী ওই ব্যক্তি “ইয়ে লো আজাদি…হিন্দুস্তান জিন্দাবাদ…দিল্লি পুলিশ জিন্দাবাদ” বলে স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভাকারীদের দিকে গুলি ছোড়েন।

আহমেদ জহির নামে প্রত্যক্ষদর্শী রয়টার্সকে বলেন, “ঘটনার সময় পুলিশ পাশেই দাঁড়িয়ে ছিল।”

এদিকে রয়টার্স এই ঘটনার মুহুর্তের একটি ছবি প্রকাশ করেছে। ছবিটিতে দেখা যায়, একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে পুলিশ ব্যারিকেডের মাত্র কয়েক গজ সামনে কালো জ্যাকেট পরিহিত এক ব্যক্তি জমায়েত হওয়া বিক্ষোভাকারীদের দিকে তাক করে গুলি ছুড়ছেন।

পরে ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে বলে জানালেও এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায় সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্তৃপক্ষ।

উল্লেখ্য, ভারতে সংশোধিত নাগরিক তালিকার বিরুদ্ধে সারা ভারতে ডিসেম্বর থেকে বিক্ষোভ শুরু হয়। সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ সমাবেশগুলো দিল্লির এই বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাতেই অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার মহাত্মা গান্ধির মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে মিছিল বের করে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা যাদের অধিকাংশই নারী। কিন্তু বাঁধা দেওয়ায় পুলিশের ব্যারিকেডের সামনেই অবস্থান নেন তারা।

এদিকে, দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন যে সংশোধিত নাগরিক তালিকা ২০১৫ সালের আগে প্রতিবেশী দেশগুলোতে নির্যাতনের শিকার হয়ে ভারতে পাড়ি জমানো জনগণের সুবিধার জন্য তৈরি করা হয়েছে।

কিন্তু বিক্ষোভকারীদের দাবি, এই তালিকার মাধ্যমে দেশের মুসলিম নাগরিকদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয়েছে যা দেশটির সংবিধানকে লঙ্ঘন করেছে।

সম্প্রতি, ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। বিজেপির পক্ষ থেকে বিক্ষোভকারীদের “দেশাত্ববোধহীন” হিসেবেও উল্লেখ করা হয়।

Development by: webnewsdesign.com