স্বামী সংসার ফেলে দেবরের সঙ্গে উধাও গৃহবধূ

বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২০ | ৪:৩০ অপরাহ্ণ

স্বামী সংসার ফেলে দেবরের সঙ্গে উধাও গৃহবধূ

স্বামীর দেওয়া সোনার গহনা ও টাকা নিয়ে তিন বছরের সন্তান রেখে খালাতো দেবরের সঙ্গে পালিয়ে গেছে এক গৃহবধূ। গত ২২ ডিসেম্বর দুপুর ১টার দিকে শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার চরশিমুলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্ত্রীকে ফিরে পেতে সুমন দেবনাথ দৈনিক অধিকারকে বলেন, আমার দেওয়া স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ সোয়া এক লাখ টাকা নিয়ে খালাতো ভাই জনি পোদ্দারের সঙ্গে পালিয়ে যায় আমার স্ত্রী দিপ্তী রানী। আমি আমার স্ত্রীকে ফিরে পেতে চাই। যিনি আমার স্ত্রীর সন্ধান দিতে পারবে তাকে এক লাখ টাকা পুরস্কৃত করা হবে।

এ ঘটনায় শনিবার (৪ জানুয়ারি) স্বামী সুমন দেবনাথ (২৯) জাজিরা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

পালিয়ে যাওয়া দিপ্তী রানী দেবনাথ (২৫) উপজেলার চরশিমুলিয়া গ্রামের সুমন দেবনাথের স্ত্রী। আর তার প্রেমিক জনি পোদ্দার (২৭) নড়িয়া উপজেলার মসুরা গ্রামের নিখিল চন্দ্র পোদ্দারের ছেলে।

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর গ্রামের প্রাণ কৃষ্ণ দাসের মেয়ে দিপ্তী রানীর সঙ্গে শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার চরশিমুলিয়া গ্রামের মানিক দেবনাথের ছেলে সুমন দেবনাথের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর পাঁচ বছর তাদের সংসার জীবন সুখেই কাটছিল। কিন্তু দুই বছর যাবত প্রেমিক জনি পোদ্দারের সঙ্গে দিপ্তী রানীর প্রথম বন্ধুত্ব হয়। পরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ২২ ডিসেম্বর দুপুর ১টার দিকে স্বামী সুমন দেবনাথের দেওয়া স্বর্ণ ও টাকা নিয়ে তিন বছরের ছেলে শুভ দেবনাথকে রেখে প্রেমিক জনির সঙ্গে পালিয়ে যায় দিপ্তী রানী। তাকে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করেও পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় শনিবার (৪ জানুয়ারি) স্বামী সুমন দেবনাথ জাজিরা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

জাজিরা থানার এসআই ইকবাল হোসেন দৈনিক অধিকারকে বলেন, দিপ্তী রানী তার খালাতো দেবর জনি পোদ্দারের সঙ্গে পালিয়েছে। এ ঘটনায় তার স্বামী সুমন দেবনাথ থানায় একটি অভিযোগ করেছেন।

Development by: webnewsdesign.com